রমজানে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে–সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক

0
104

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খান বলেছেন, রমজান মাসে জেলার বাজার গুলোতে
নিত্যপণ্যের দাম বাড়াবে না ব্যবসায়ীরা। এবিষয়ে ব্যবসায়ীদের সাথে জেলা প্রশাসনের বৈঠক হয়েছে বুধবার। ব্যবসায়ীরা জেলার বাজারের
পণ্যগুলো দাম না বাড়ানো থেকে বিরত থাকবে।

এছাড়াও ব্যবাসায়ীরা যদি বাজারে পণ্যের দাম বাড়িয়ে বাজার অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী দেয়া হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে। বুধবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আয়োজিত টিসিবি পণ্য বিক্রি বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খান। তিনি বলেন, কোন ব্যবসায়ী রমজানে বাজার অস্থিশিল করার চেষ্টায় পণ্য মৌজুদ বা মূল্য বৃদ্ধি করে তাহলে সর্বোচ্চ কঠোর ব্যবস্থা নেবে জেলা প্রশাসন।

বাজার মনিটরিং কমিটির তদারকি চালিয়ে রিপোর্ট জানানোর জন্যও বলেন জেলা প্রশাসক। ডিসি আরও বলেছেন, জেলায় বাজার মনিটরিং টিম রয়েছে। ওই বাজার মনিটরিং টিম সব কিছুই পর্যবেক্ষণ করছে। তেল, ডাল, চালের দাম আগের থেকে কিছুটা দাম কমেছে। এছাড়াও যদি কোন ব্যবসায়ী গোডাউনে তেল, চাল, ডাল, চিনি, মজুদ রাখেন তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর হবে প্রশাসন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জাকিউল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক তসলিম উদ্দিন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহান, টিসিবি কর্মকর্তা আরডিসি মো. আনিসুর রহমান, জেলা কৃষি অধিদপ্তরের উপ পরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হোদা অলক, দৈনিক চাঁপাই দর্পণ’র সম্পাদক ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু, সাংবাদিক রফিকুল আলম, ফয়সাল মাহমুদ, আজিজুর রহমান শিশির, কামাল সুকরানা, মেহেদী হাসান শিয়ামসহ স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে টিসিবি পণ্য বিক্রি বিষয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, নিত্যপন্যের দাম বাড়ায় বাজারকে স্থিতিশীল রাখতে সরকার দেশের দরিদ্র ও সাধারণ মানুষের কথা ভেবে ভর্তুকি মূল্যে ১ কোটি মানুষকে টিসিবির পন্য দেয়ার অংশ হিসেবে আসন্ন পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের তত্বাবধায়নে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২১০ টি ডিলারের মাধ্যমে ৩১ টি স্থানে ১ লাখ ৩০ হাজার ৩২০ টি পরিবারের মধ্যে ভর্তুকি মূল্যে টিসিবির পন্য বিক্রয়ের জন্য তালিকা করা হয়। এর মধ্যে ২০ মার্চ থেকে এখন পর্যন্ত ১ লক্ষ ৪ হাজার ৮৬৯ জনের কাছে টিসিবি পণ্য বিক্রি করা হয়েছে। বাকি ২৫ হাজার ৪৫১জনের কাছে পণ্য বিক্রি চলমান রয়েছে।

২০ মার্চ থেকে প্রথম ধাপে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ৭৮০ মে.টন পন্য বিক্রয় করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে সংশিষ্ট ডিলররা। জেলা প্রশাসনের এই কর্মসূচী সফলভাবে সম্পন্ন করতে জেলার মিডিয়াকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট   কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন জেলা প্রশাসক।

পণ্য প্রাপ্তি সাপেক্ষে আগামী ৫ থেকে ৭ এপ্রিলের পরই আবারও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ৫ উপজেলা ও ৪টি পৌরসভায় ২ কেজি ডাল, ২ কেজি চিনি ও ২ কেজি তেল ও কেজি ছোলা (প্রতি কেজি ৫০ টাকা দরে) সহ মোট ৮ কেজি পণ্য ৫৬০ টাকায় বিক্রি করা হবে জেলার ১ লাখ ৩০ হাজার ৩২০ পরিবারের কাছে বলেও জানানা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

আগামীতের জেলায় টিসিবি পণ্য সুষ্ঠুভাবে বিতরণের লক্ষে মিডিয়াকর্মীসহ সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খান। উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ৫ উপজেলা ও ৪টি পৌরসভায় মোট ১ লাখ ৩০ হাজার ৩২০ পরিবার টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। তিনটি পণ্য ২ কেজি করে মোট ৬ কেজি পণ্য ৪৬০ টাকা করে বিক্রি করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ৩৩ হাজার ১০, শিবগঞ্জ উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে ৪২ হাজার ৯৯১, গোমস্তাপুর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ২১ হাজার ২৪৯, নাচোল উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ১১ হাজার ৮১৩, ভোলাহাট উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৬ হাজার ৭৪৬টি পরিবার এইখাদ্য ক্রয়ের সুযোগ পাবেন।

জেলার ৫টি উপজেলায় টিসিবির পণ্য পাবেমোট ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৮০৯টি পরিবার। বাকি ১৪ হাজার ৫১৪টি পরিবারটিসিবির পণ্য পাবে জেলার চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা-৯৭০৪, শিবগঞ্জ পৌরসভা-৩৪২৯, রহনপুর পৌরসভা-২৯৩৫ এবং নাচোল পৌরসভায়-২৩৫৬।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here