শিক্ষকরা ভিতরে, আমরা কেন বাহিরে?

0
220

 

ইবি প্রতিনিধি: শিক্ষকরা অনায়াশে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক ভবনে থাকছে, আর আমরা এক করোনার অজুহাতে জীবনের ঝুকি নিয়ে গাদাগাদি করে মেসে আছি। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা চলছে। ফলে বাসে উপঁচে পড়া ভিরের মধ্য দিয়ে প্রতিনিয়ত ক্যাম্পাসে আসতে হচ্ছে। যেখানে জীবনের নিরাপত্তা সংকটময়। তাই জীবনের নিরাপত্তার জন্য হলেও শিক্ষার্থীদের আবাসিক হলসমূহ খুলে দেয়া জরুরী।
তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় প্রায় ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী অনলাইন পড়াশুনা থেকে বিচ্ছিন্ন। পড়াশুনার পরিবেশ নিশ্চিতে হলখোলার বিকল্প নেই। রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারী) ইসালামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খোলার দাবিতে আন্দোলনকালে এসব কথা বলেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
জানা যায়, হল খুলার এক দফা দাবিতে বেলা ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডায়না চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের সামনে আসলে প্রক্টরিয়াল বডির বাঁধার সম্মূখীন হয়। এসময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা তাদের বাঁধা উপেক্ষা করে পুনরায় মিছিল শুরু করে। পরে মিছিলটি পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে সমাবেত হয়।
কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীদের ‘শিক্ষকরা ভিতরে, আমরা কেন বাহিরে?’ ‘প্রশাসনের প্রহসন মানিনা মানবোনা’, ‘একদফা একদাবি, আজকে হল খুলে দিবি’, ‘ভাওতাবাজি বন্ধ কর, হলগুলো অপেন কর’ সহ নানান স্লোাগান দিতে দেখা যায়।
পরে হল খোলার এই দাবি নিয়ে উপাচার্য বাসভবনে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সাথে দেখা করেন শিক্ষার্থীরা। এসময় উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম জানান, তোমাদের হল খোলার এই দাবি খুবই যৌক্তিক। কিন্তু সরকারের নির্দেশ ছাড়া আমরা চাইলেই হল খোলার ঘোষনা দিতে পারিনা। এ সপ্তাহের শেষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আমাদের মিটিং আছে। সেখানে শিক্ষার্থীদের এ দাবি সরকারকে জানাবো।
এদিকে বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে হল খোলার আশ্বাস না পেয়ে সরাসরি সরকারের নির্দেশ পাওয়ার আগ পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুশিয়ারী দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here