শরীয়তপুরে লোডশেডিং ও জ্বালানী খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ

0
236

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ॥ সারাদেশে লোডশেডিং ও জ্বালানী খাতে অব্যবস্থাপনার বিরদ্ধে প্রদিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শরীয়তপুর জেলা বিএনপি। রোববার বেলা ১১টায় শরীয়তপুর-মাদারীপুর মহাসড়কের আংগা-রিয়া বাইপাস এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে আঙ্গারিয়া বন্দরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করেন নেতৃ-বৃন্দ।

পরে আংগারিয়া নদীর পাড় এলাকায় শরীয়তপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরন এর সভা-পতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসরাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সরদার একেএম নাসির উদ্দিন কালু।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদ আহমেদ আসলাম, শরীয়পুর সদর উপ-জেলা বিএনপির সভাপতি সিরাজুল হক মোল্যা, যুগ্ম ও শরীয়তপুর সরকারী কলেজের সাবেক ভিপি নাজমুল হক বাদল, সদর উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি আক্তার হোসেন মাঝিসহ বিএনপি, মহিলাদল, যুবদল, ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. রফিকুল ইসরাম বলেন, এই সরকার পুরো জাতিকে হারিকেন ধরিয়ে দিয়েছে।

শুধু বিদ্যুৎ ক্ষাতেই না, শিক্ষা, চিকিৎসা সহ সকল খাতেই মিথ্যাচার ও অনাচার করে আসছে। সরকার বরাবরই বলে আসছে দেশে বিদ্যুতের চাহিদার চাইতে বেশী উৎপাদন রয়েছে। এখন তার প্রমাণ দেখতে পাই। পদ্মাসেতু নির্মাণে ১০ হাজার কোটি টাকা বাজেট ধরে তা ৩০ হাজার কোটিতে, মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার ৩৫০ কোটির স্থলে দের হাজার কোটিতে নিয়ে গেছে।

এমনি ভাবে প্রতিটি মেঘা প্রকল্পেই লুটপাট হয়েছে। এই টাকায় তারা কানাডা, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম তৈরী করছে। এবার শ্রীলংকাকে টাকা লোন দেওয়ার পরে বিভিন্ন দাতা দেশের কাছে আবার লোন চাইছেন সরকার। এই সব কিছুর হিসাব জনগণকে দিতে হবে।

৩৫ লাখ বিএনপির নেতকর্মীদের বিরুদ্ধে ১ লাখ ৭ হাজার মামলা। তার পরেও বিএনপির নেতাকর্মীদের হত্যা ও গুম করা হচ্ছে। এখন আপনাদের হাতে সময় নেই। শরীয়তপুর থেকেই এই ফেসিবাদী সরকার পতনের আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে ইনশাআল্লাহ।

সমাবেশের সভাপতির শফিকুর রহমান কিরন বলেন, সরকার কুইকরেন্টাল ফান্ড করে দলীয় লোকদের হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের ব্যবস্থা করে দিয়েছে আর সেই সরকার বলছে বিদ্যুৎ নাই। রাজধানীর গুলশান, বারিধারায় বিদ্যুৎ থাকে না। এমন পরিস্থিতি সকল জেলায়।

মাননীয় প্রধান মন্ত্রী আপনার বাবা আক্ষেপ করে বলেছিলেন ‘সকলে পেয়েছে সোনার খনি আর আমি পেয়েছি চোরের খনি’। আর কিছুদিনের মধ্যে আপনাকেও এই কথা বলতে হবে। বিদ্যুতের জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা যাদের হাতে তুলে দিয়েছেন তাদের জবাবদিহীতার আওতায় আনলেই সমাধান মিলবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here