তালতলীতে ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় আহত অন্তত ২০

0
100

মল্লিক মোঃ জামাল, বরগুনা প্রতিনিধিঃ বরগুনার তালতলীতে নির্বাচনী সহিংসতার জের ধরে নৌকা ও আনারস সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই গ্রুপের প্রায় ২০ জন আহত হয়েছে । গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলার শারিকখালী ইউনিয়নের বগীরবাদ বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল বাশার বাদশা তালুকদারের মেয়ে ডলি বেগম (৪৫) অহেতুক আনারস প্রতীকের অফিসে প্রবেশ করে চেয়ার টেবিল ভাংচুর করে। আনারস প্রতীকের সর্মথকরা নৌকা প্রতীকের লোকেদের ভয়ে পালিয়ে যেতে চাইলে তাদেরকে অবরুদ্ধ করে দেশীয় অস্ত্র, লোহার রড, পাইপ লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। তালতলী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এবং আহতদেরকে উদ্ধার করে আমতলী, পটুয়াখালী সহ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠায়।

উত্তেজিত ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ১২ জনকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এবিষয়ে আনারস প্রতীকের প্রার্থী জাকির হোসেন বাবুল (বাবলু) বলেন, নৌকার লোকেরা বহিরাগতদের নিয়ে এই নির্বাচনীয় শারিকখালী ইউনিয়নে প্রবেশ করে বগীরবাদের অফিস ভাংচুর ও আমার কর্মীদের মারধর করে। এর পূর্বেও তারা আমার বোনের বাড়ীতে হামলা ও লুটপাট চালিয়েছে। আমরা সুষ্ঠ ভাবে নির্বাচন করতে চাই। সংঘাত নয় শান্তি চাই। আমি শান্তির পাশাপাশি এই ঘটনার উপযুক্ত শাস্তি চাই।

এবিষয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবুল বাশার বাদশা তালুকদারকে একাধিকবার ফোন করলে কিংবা ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েও তার সারা মেলেনি অন্যদিকে তার ভাগীনা নওশের আজাদ পলাশ স্থানীয় এক সাংবাদিককে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

ভাংচুরের ঘটনার ভিডিও ও সংবাদ সংগ্রহ করতে যাওয়া অন্য এক সাংবাদিককে বাদশা তালুকদারের ভাতিজা রিপন (৪৫) তালুকদার ঘটনাস্থলে হেনস্তা করে।

তালতলী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here