টাঙ্গাইলে স্বামী হত্যাকাণ্ডে পলাতক স্ত্রী গ্রেফতার !

0
134

টাঙ্গাইল শহরের বিশ্বাস বেতকা ধোপাপাড়া এলাকায় স্বামী হত্যাকাণ্ডের পর পলাতক স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সকালে টাঙ্গাইল র‌্যাব-১২, সিপিসি-৩ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ আনিছুজ্জামান প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে যৌথ অভিযান চালিয়ে হবিগঞ্জের রাজাপুর এলাকা থেকে হৃদয় বানু নামে ওই নারীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার হৃদয় বানুকে জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানান, তার স্বামী আবু সাঈদ সেন্টুসহ তিনি সৌদি আরবে ছিলেন। সৌদি থাকাকালে তাদের মধ্যে সম্পর্ক হয় এবং পরে তারা বিয়ে করেন।

বিয়ের তিন-চার মাস পর হৃদয় বানু অন্তঃসত্ত্বা হন। পরবর্তীকালে তাকে স্বামীর বড় ভাই খোরশেদের কাছে গাজীপুরে পাঠিয়ে দেন। হৃদয় বানু দেশে আসার এক মাস পর আবু সাঈদও দেশে ফেরেন। স্বামী দেশে আসার পরও হৃদয় বানুকে তিনি স্বামীর বড় ভাইয়ের বাসায় রাখেন। সেখানে তাদের এক কন্যাসন্তানের জন্ম হয়।

হৃদয় বানু আরও জানান, দুই মাস আগে টাঙ্গাইলের বিশ্বাস বেতকা ধোপাপাড়া এলাকায় একটি টিনশেড বাসা ভাড়া নেন তারা। এরপর থেকে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মাঝেমধ্যেই ঝগড়া হতে থাকে। এর মধ্যে আবু সাঈদ বিদেশ যাওয়ার জন্য টিকিট কাটতে ২৫ হাজার টাকা লাগবে বলে স্ত্রীকে জানান এবং তাকে সেই টাকা জোগাড় করতে বলেন।

তার স্ত্রী সেদিনই ২৫ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে এনে স্বামীকে দেন। এরপর স্বামী টাকা নিয়ে চলে যেতে চাইলে তিনি বাঁধা দেন। রাতটুকু থেকে যেতে বলেন। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে ঝগড়া হয় এবং একপর্যায়ে স্বামী তাকে মারধর করেন। পরে স্বামী সেখানে থেকে যান।

রাতে তারা একসঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েন। পরে আনুমানিক ভোর চারটার দিকে হৃদয় বানু বাড়িতে থাকা একটি চাকু দিয়ে ঘুমন্ত স্বামীকে খুন করে পালিয়ে যান।

র‌্যাব কর্মকর্তা আনিছুজ্জামান বলেন, গ্রেফতার আসামিকে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নিতে টাঙ্গাইল সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হবে।

গত ২৮ জুলাই টাঙ্গাইল শহরের বিশ্বাস বেতকা ধোপাপাড়া এলাকায় আবু সাঈদের মরদেহ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তার দ্বিতীয় স্ত্রী হৃদয় বানু পলাতক ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here